মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

প্রখ্যাত ব্যক্তিত্ব

 

নাম

পরিচয়

 

 জনাব মোঃ আবদুল হামিদ এডভোকেট

মহামান্য রাষ্ট্রপতি গণপ্রজাতন্ত্রী  বাংলাদেশ

 

জনাব মোঃ আব্দুল হামিদ এডভোকেট ১৯৪৪সালের ১ জানুয়া্রি কিশোরগঞ্জ জেলার মিঠামইন উপজেলার কামালপুর গ্রামে জন্ম গ্রহন করেন। তাঁর পিতার নাম মরহুম হাজী মোঃ তায়েব উদ্দিন এবং মাতার নাম মরহুমা তমিজা খাতুন ।

জনাব মোঃ আব্দুল হামিদ এডভোকেট কিশোরগঞ্জ এর গুরুদয়াল কলেজ থেকে আই.এ ও বি.এ ডিগ্রি এবং ঢাকার সেন্ট্রাল ল’কলেজ থেকে এল.এল.বি ডিগ্রি লাভ করেন। এল.এল.বি ডিগ্রি অর্জনের পর তিনি আইন পেশায় কিশোরগঞ্জ বারে যোগদান করেন। তিনি ১৯৯০-১৯৯৬ সময় কাল পর্যন্ত পাঁচ বার কিশোরগঞ্জ জেলা বার সমিতির সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

জনাব আব্দুল হামিদের রাজনৈতিক জীবন শুরু ১৯৫৯ সালে তৎকালীন ছাত্রলীগে যোগদানের মাধ্যমে । ১৯৬১ সালে কলেজে অধ্যয়নরত অবস্থায় তিনি আইয়ুব বিরোধী আন্দোলনে অংশগ্রহণ করেন। ফলে তৎকালীন পাকিস্তান সরকার তাঁকে কারারুদ্ধ করে। ১৯৬৩ সালে তিনি কিশোরগঞ্জের গুরুদয়াল কলেজ ছাত্র সংসদের সাধারণ সম্পাদক এবং ১৯৬৫ সালে একই কলেজের সহ-সভাপতি নির্বাচিত হন। ১৯৬৪ সালে কিশোরগঞ্জ সাব ডিভিশনের ছাত্রলীগের প্রতিষ্টাতা সভাপতি এবং ১৯৬৬-১৯৬৭ সালে ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রলীগের জেলা সহ-সভাপতি নির্বাচিত হন। ১৯৬৯ সালে তিনি আওয়ামীলীগে যোগদান করেন।

জনাব আব্দুল হামিদ ১৯৭০ সালে ময়মনসিংহ-১৮ থেকে পাকিস্তান জাতীয় পরিষদের সর্বকনিষ্ট সদস্য নির্বাচিত হন। তিনি ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশ গ্রহণ করেন এবং ভারতে মেঘালয় রিক্রুটিং ক্যাম্পের চেয়ারম্যান ও তৎকালীন সুনামগঞ্জ ও কিশোরগঞ্জ জেলার বাংলাদেশ লিবারেশান ফোর্স (মুজিব বাহিনী) সাব সেক্টরের কমান্ডার পদসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৭৩ সালে ৭ মার্চ অনুষ্ঠিত প্রথম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কিশোরগঞ্জ-৫ আসন থেকে তিনি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ১৯৭৪ সালে তিনি কিশোরগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি নির্বাচিত হন এবং ১৯৭৮ থেকে ২০০৯ খ্রিঃ এর ২৫ জানুয়ারি স্পীকার নির্বাচিত হবার পূর্ব পর্যন্ত সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন।

১৯৮৬ সালে তৃতীয় জাতীয় সংসদ নির্বাচন, ১৯৯১ সালে পঞ্চম জাতীয় সংসদ নির্বাচন, ১৯৯৬ সালে সপ্তম জাতিয় সংসদ নির্বাচন, ২০০১ সালের অষ্টম জাতীয় সংদস নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী হিসাবে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। জনাব আব্দুল হামিদ সপ্তম জাতীয় সংসদে ডেপুটি স্পীকার নির্বাচিত হন এবং ১৩ই  জুলাই, ১৯৯৬ থেকে ১০ জুলাই, ২০০১ সাল পর্যন্ত এ পদে দায়িত্ব পালন করেন। পরবর্তীতে তিনি স্পীকার নির্বাচিত হন এবং ১১ জুলাই, ২০০১ থেকে ২৮ অক্টোবর, ২০০১ পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন। অষ্টম জাতীয় সংসদে তিনি ২০০১ সালে ১ নভেম্বর থেকে ২৭ অক্টোবর ২০০৬ পর্যন্ত বিরোধী দলীয় উপনেতা হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন। ২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বরের অনুষ্ঠিত নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন এবং ২০০৯ সালের ২৫ জানুয়ারি সর্বসম্মতিক্রমে ২য় বারের মত স্পীকার নির্বাচিত হন।

একজন সমাজ সেবক ও শিক্ষা সংস্কৃতির পৃষ্ঠপোষক জনাব আব্দুল হামিদ তাঁর নির্বাচনী এলাকায় অনেক বিদ্যালয়, মাদ্রাসা এবং কলেজ প্রতিষ্ঠা করেন। তিনি কিশোরগঞ্জ জেলা শিল্পকলা একাডেমী, রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি, কিশোরগঞ্জ রাইফেলস ক্লাব এবং কিশোরগঞ্জ প্রেস ক্লাবের আজীবন সদস্যসহ বহু সংগঠনের সাথে জড়িত।

জনাব আব্দুল হামিদ বিবাহিত এবং তিন পুত্র ও এক কন্যা সন্তানের জনক। জাতীয় ও আন্তর্জাতিক রাজনীতি বিষয়ক এবং বিভিন্ন দেশের সংবিধান ও ইতিহাস গ্রন্থ পাঠ করা প্রিয় শখ।

ছবি